Home জ্যোতিষ ও রাশিফল ভাগ্য পরিবর্তন করতে রান্নাঘর বানান বাস্তুসম্মত! জেনে নিন কিছু টিপস

ভাগ্য পরিবর্তন করতে রান্নাঘর বানান বাস্তুসম্মত! জেনে নিন কিছু টিপস

রান্নাঘরের অবস্থান আর তার প্রয়োজনীয় আসবাব রাখার ব্যবস্থা বাস্ত্ত পরিকল্পিত হলে তা পরিবারের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে পারে।বাড়িই হোক বা ফ্ল্যাট – তার কিচেন অর্থাত্‍ রান্নাঘরটি বাড়ির মহিলাদের পক্ষে ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ৷ কারণ দিনের বেশির ভাগ সময়টাই বাড়ির মহিলাদের কাটাতে হয়৷ তাছাড়া এখানে যেহেতু পরিবারের সকলের জন্য খাবার তৈরি হয়, তাই ঘরটির অবস্থান এবং রান্নাঘরের প্রয়োজনীয় আসবাব ও ইলেকট্রিকাল যন্ত্রপাতি রাখার ব্যবস্থা স্বাস্থ্যসম্মতভাবে যদি করা যায় তাহলে তা পরিবারের সকলের সুস্বাস্থ্য সুনিশ্চিত হবে৷
এখন জেনে নিন রান্নাঘরকে বাস্তুসম্মত করার কিছু টিপস-
  • রান্না ঘরের কল বা জল সম্পর্কিত জিনিষ রাখুন উত্তর-পূর্ব কোণে৷
  • অ্যাকোয়াগার্ড, ফিল্টার, জলের জালা বা পাত্র ইত্যাদি থাকবে এই উত্তর-পূর্ব কোণেই৷
  • কিচেন বেঞ্চ মার্বেল বা অন্য কোনও স্টোন দিয়ে করা যেতে পারে৷ কিন্ত্ত গ্র্যানাইট ব্যবহার না করতে পারলেই শুভ৷
    স্টেনলেস সিঙ্ক ব্যবহার করা যেতে পারে৷ মোজাইক বা মার্বেলের সিঙ্কও বসানো যায়৷ আপনার সুবিধামত এই ধরনের সিঙ্ক রান্নাঘরের দক্ষিণ দিকে বসানোর চেষ্টা করবেন৷ কোনওভাবেই উত্তর-পূর্ব দিকে বসাবেন না৷
    জায়গার অভাবে আজকাল ভাঁড়ার ঘর ব্যাপারটা উঠেই গিয়েছে৷ তবু বাড়ির ক্ষেত্রে রান্নাঘরের উত্তর-পশ্চিমে, দক্ষিণে বা দক্ষিণ-পশ্চিমে ভাঁড়ার ঘর করা যেতে পারে৷
  •  স্টেনলেস সিঙ্ক ব্যবহার করা যেতে পারে৷ মোজাইক বা মার্বেলের সিঙ্কও বসানো যায়৷ আপনার সুবিধামত এই ধরনের সিঙ্ক রান্নাঘরের দক্ষিণ দিকে বসানোর চেষ্টা করবেন৷ কোনওভাবেই উত্তর -পূর্ব দিকে বসাবেন না৷
  • বাসনপত্র রাখার র্যাকও দক্ষিণ বা দক্ষিণ-পশ্চিম দেওয়ালেই ভালো৷
  • মশলাপাতি, চাল, ডাল ইত্যাদির কৌটো যে র্যাক বা ক্যাবিনেটে রাখবেন তা কভারড না হওয়াই স্বাস্থ্যসম্মত, কিন্ত্ত এই সকল মশলাপাতির কৌটোর মুখ যেন কোনও সময়ই খোলা না থাকে৷
  • বঁটি, ছুরি ইত্যাদি যেখানে সেখানে ফেলে রাখবেন না৷ সব সময় কোনও কভারড জায়গায় রাখার চেষ্টা করুন৷
  • রোজের আবর্জনা ঢাকা দেওয়া বিনে ফেলুন৷ এই বিন রাখুন দক্ষিণ দিকে বা উত্তর পশ্চিম দিকে৷ পূর্বদিকে ডাস্টবিন রাখবেন না৷বাড়ির দক্ষিণ-পূর্ব দিকটি নিয়ন্ত্রণ করেন অগ্নিদেবতা৷ তাই এই দিকটির নাম হল অগ্নিকোণ৷ রান্নাঘরের কাজকর্ম যেহেতু অগ্নি সম্পর্কিত তাই রান্নাঘরের অবস্থান ‘অগ্নিকোণ’-এ হওয়াই সর্বশ্রেষ্ঠ৷
  • সম্ভব না হলে রান্নাঘরটি উত্তর-পশ্চিমে করা যেতে পারে৷
  • তবে রান্নাঘর যেখানেই হোক না কেন – তা যেন বাড়ির ব্রহ্মস্থানে (অর্থাত্‍ মাঝখানে) যাতে না হয় তা সুনিশ্চিত করা প্রয়োজন৷
  • রান্নাঘরের কিচেন প্ল্যাটফর্মটি পূর্বদিকের দেওয়ালে করা উচিত যাতে পূর্বদিকে মুখ করে রান্না হয়৷
  • কোনওভাবেই উত্তর বা পশ্চিমদিকে মুখ করে রান্না নয়৷
  • বাস্ত্তশাস্ত্রের এই দিক নির্দেশ মেনে চললে রান্না করা খাবার যে রকম সুস্বাদু ও পুষ্টিকর হয় তেমনই অপচয় বন্ধ হয়৷ মা লক্ষ্মী, মা অন্নপূর্ণার আশীর্বাদও পাওয়া যায়৷

আরও পড়ুনঃগর্ভবতী মায়েরা নিজেদের সন্তানের সুস্বাস্থের জন্য সঠিক খাদ্য গ্রহন করছেন তো?

Web content writing training Online
100% Free Domain Hosting - Dreamhost banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

জেনে নিন কেমন যাবে বুধবারের দিন!

মেষঃ আপনার স্ত্রীর জন্য কোনও কাজের খবর আসতে পারে। কেউ দামি উপহার দিলে নেওয়ার আগে একটু ভেবে…