ভূতুরে অভিজ্ঞতা
Home টলিউড - বলিউড - হলিউড শুটিং এ নাকি ‘ভূতের হানা’! গা ছমছমে ভূতুরে অভিজ্ঞতা -র কথা জানালেন অভিনেতা জয়জিত বন্দ্যোপাধ্যায়

শুটিং এ নাকি ‘ভূতের হানা’! গা ছমছমে ভূতুরে অভিজ্ঞতা -র কথা জানালেন অভিনেতা জয়জিত বন্দ্যোপাধ্যায়

শুটিং করতে গিয়ে তিনি নাকি পড়েছিলেন ভূতের খপ্পরে।সেই অভিজ্ঞতার কথাই জানালেন টলিউড অভিনেতা জয়জিত।

টলিউডে বেশ নাম করা অভিনেতা হলেন জয়জিত বন্দ্যোপাধ্যায়।সম্প্রতি তিনি তাঁর একটি হাড় হীম করা অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন ভারতীয় এক সংবাদ মাধ্যমকে।এমনিতে ভূতে বিশ্বাস নেই এই অভিনেতার।কিন্তু এইবার তেনাদের উপদ্রবে নাকি শুটিং বন্ধ করার জোগাড় হয়েছিল। ‘অদ্ভুতুড়ে ভূত’ নামক ভূতের ছবিটির শুটিং করতে গিয়ে ভূতের উপদ্রবের শিকার হতে হয়েছে বলে দাবি করেন জয়জিত।এ যেন ‘রিল লাইফ’এর সাথে মিশে গেছে ‘রিয়েল লাইফ’।অনেকটা সেই অনীক দত্তের পরিচালিত ছবি ‘ভূতের ভবিষ্যতের’ মত।কি হয়েছিল আসলে সেই দিন? আসুন জেনে নিই জয়জিতের সেইদিনের ভূতুরে অভিজ্ঞতা ।

Web content writing training Online
ভূতুরে অভিজ্ঞতা
Source: Indian Express

ঘটনাটি গত বছরের নভেম্বর মাসের ঘটনা।মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জের এক পরিত্যক্ত জমিদার বাড়িতে মানস বসু পরিচালিত ‘অদ্ভুতুড়ে ভূত’ এর শুটিং করছিলেন তিনি।সেখানেই ঘটে এই রোমহর্ষক ঘটনা।অভিনেতা জানালেন ভূতের ছবির জন্য এক পরিত্যক্ত বাড়ি দরকার পড়াতে জয়জিতের সহ অভিনেতা সৌমেন হাজারি জিয়াগঞ্জের এই পরিত্যক্ত বাড়িটির সন্ধান দেন।এই পরিত্যক্ত জমিদার বাড়িটি ছিল প্রায় পাঁচশ বছরেরও বেশি পুরোনো।অভিনেতা জানালেন এই বাড়িতে অনেকগুলো ঘর এমনও আছে যেখানে দিনের বেলাতেও সূর্য্য প্রবেশ করতে পারে না।তিনি আরো বলেন এমনিতে যদিও তিনি ভূতে বিশ্বাস করেন না কিন্তু ওই পরিত্যক্ত বাড়িটিতে ঢোকার পরই অশুভ আভাস পেয়েছিলেন তিনি।ছবির কিছু অংশের শুটিং দিনে থাকলেও ছবির বেশির ভাগের শুটিং ছিল রাতের অন্ধকারেই।তাই সন্ধ্যে নামতে না নামতেই শুটিং এর তোড়জোড় শুরু হয়ে যেত।এমনই এক রাতে ঘটে যায় ঘটনাটি।

আরও পড়ুনঃফিল্ম রিভিউ জেষ্ঠ্যপুত্র-সম্পর্কের টানাপোড়েনের এক অসাধারণ গল্প!

অভিনেতা জানান সেইদিন যখন শুটিং এর তোড়জোড় চলছিল বাকি কলাকুশলীদের সাথে একটা ঘরে ছরিয়ে ছিটিয়ে বসে ছিলেন তিনি।হঠাতই তিনি অনুভব করেন তাঁর পিঠে টোকা মেরে কে যেন তাকে ডাকছে। প্রথমে তিনি ভাবেন শুটিংএর কেউ বুঝি তাঁর সাথে রসিকতা করছেন।পরে যখন দু তিনবার টোকা পড়ে তিনি পিছন ঘুরে তাকাতে দেখেন তার পেছনে কেউই নেই।পুরো অন্ধকার।সেই সময় ভয় পেয়ে যান তিনি।পরিচালক কে ঘটনাটির কথা বলাতে পরিচালক হেসেই উড়িয়ে দেন তার কথা।সবাই মস্করা করতে শুরু করায় তিনি ভাবেন সত্যিই বুঝি তিনি মনের ভয়ের থেকে এমনটা অনুভব করেছেন।তাই ঘটনাটিকে আর অতটা পাত্তা দেন না তিনি।

সেই ভূতুরে বাড়ি
Source: Indian Express

কিন্তু পরে আবার ঘটে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি।কিন্তু এবার একটু অন্যরকমভাবে।তিনি জানান ওই বাড়িরই একটি ঘর থেকে অন্য ঘরে যাচ্ছিলেন তিনি সিড়ি বেয়ে।তার সামনে একজন লোক এবং পেছনে একজন লোক থাকা সত্ত্বেও তিনি অনুভব করেন কেউ যেন তাঁর গা ঘেষে তার পাশ দিয়ে তার সাথে সাথে উঠছে।কিন্তু পাশে আদপে কেউই ছিল না।এরপরে সত্যিই ভয় পেয়ে তিনি ডিরেক্টরকে অনুরোধ করেন শুটিং বন্ধ করার জন্য।কিন্তু পরিচালক হেসে উড়িয়ে দেন তার কথা।পরিচালক মজা করে বলেন হয়ত কোনো জমিদার কন্যার আত্মার জয়জিতকে পছন্দ হয়েছে তাই সে তার পেছন ছাড়ছে না।

সবাই মজা করলেও ভূতের টোকা তিনি পড়েও অনুভব করেছিলেন।কেমনকি সেই ভূত তার হাত ধরে টান পর্যন্ত মেরেছে।শুটিং শেষ করে হোটেলে ফিরে মিলেছে মুক্তি।’অদ্ভুতুড়ে ভূত’ নামের এই স্বল্পদৈর্ঘের ছবিটি শিঘ্রই মুক্তি পেতে চলেছে।এর মধ্যে ইউটিউবে ইতিমধ্যে মুক্তি পেয়ে গেছে এই ছবির ট্রেলার।এই ভূতুরে ছবিতে জয়জিৎ ছাড়াও অভিনয় করেছেন উত্তম কুমার দাস, দেবব্রত সামন্ত ও সৌমেন হাজারি। এই অভিজ্ঞতার পর তিনি ভূতুরে বাড়ি নিয়ে একটি প্রজেক্ট করার কথা ভাবছেন।এখন সেই প্রজেক্ট এই সিনেমার মত স্বল্প দৈর্ঘের ছবি হবে না ওয়েব সিরিজ হবে তা এখনো জানা যায় নি।

পরবর্তীতে দেখুনঃগরমে সুস্থ থাকতে চান? দেখে নিন উপায়! 

100% Free Domain Hosting - Dreamhost banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, তাই ‘গুজব’ রটাবেন না !

চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ৷ মঙ্গলবার বিকেলে হাসপাতাল থেকে আসা মেডিক্য…