শপথগ্রহণ
Home রাজনীতি একদিনের মধ্যেই মমতা ব্যানার্জীর সিদ্ধান্ত বদল-স্পষ্টতই জানিয়ে দিলেন তিনি অনুপস্থিত থাকবেন নরেন্দ্র মোদীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে!
রাজনীতি - May 29, 2019

একদিনের মধ্যেই মমতা ব্যানার্জীর সিদ্ধান্ত বদল-স্পষ্টতই জানিয়ে দিলেন তিনি অনুপস্থিত থাকবেন নরেন্দ্র মোদীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে!

আগামী ৩০শে মে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নরেন্দ্র মোদীর প্রধানমন্ত্রী পদে শপথগ্রহণ -এর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে চলেছেন দেশ-বিদেশের বহু মানি গুণী ব্যক্তিত্ব। এছাড়াও সেই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরাও। সেই হিসাবে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মাননীয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও আমন্ত্রণ করা হয়েছিল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও সেই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন বলে জানিয়েছিলেন। নবান্ন থেকে এমনটাই জানানো হয়েছিল। কিন্তু এরপরে ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই সিদ্ধান্ত বদল করেন তিনি। তিনি তার টুইটার হ্যান্ডেল এর মাধ্যমে স্পষ্টতই জনগণকে জানিয়ে দিলেন তিনি অনুপস্থিত থাকবেন এই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে। তিনি তার টুইটারে লিখেছেন, ” এই শপথ গ্রহণের অনুষ্ঠান গণতন্ত্র উদযাপনের অনুষ্ঠান, এখানে কোন রাজনৈতিক দলের তাকে মূল্যহীন করা উচিত নয়।’ কেন তিনি নিলেন হঠাৎ করে এমন সিদ্ধান্ত।

Web content writing training Online

গতকাল সন্ধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন যে তিনি প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যাওয়ার আমন্ত্রণ পেয়েছেন। শুধু তাই নয় তিনি সেই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এমনটাই জানিয়েছিলেন সংবাদমাধ্যমকে। তিনি বলেছিলেন,” আমাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। মাঝে আর এক দিন রয়েছে হাতে। তবে প্রধানমন্ত্রীর শপথে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।এটা যেহেতু সাংবিধানিক সৌজন্য তাই এই সিদ্ধান্ত।’ এমনকি তিনি মোদির শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন এমনটা জানিয়ে অন্য সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দের সঙ্গেও কথা বলা হয়ে গিয়েছিল মমতা বন্দোপাধ্যায়ের। কিন্তু মাঝখানে একদিন ও যেতে না যেতে তার এই সিদ্ধান্ত বদল করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুনঃনরেন্দ্র মোদীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে বাদ পড়ে গেলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

মুখ্যমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরেই ঘটে গেছে একটি ঘটনা। মোদীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বাংলার তৃণমূল কর্মীদের হাতে নিহত বিজেপি কর্মীদের পরিবারের সদস্যদের।পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগেই গাছের ডালে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গেছিল দলিত যুবক ত্রিলোচন মাহাতোর দেহ। উল্লেখ্য, এই ত্রিলোচন মাহাতো ছিলেন একজন বিজেপি কর্মী। ত্রিলোচন এর মৃতদেহ যখন পাওয়া যায় তখন দেখা যায় তার শরীরের সাটা রয়েছে একটি পোস্টার। সেই পোস্টারে লেখা ছিল বিজেপি পার্টি করার জন্য ত্রিলোচনকে মরতে হয়েছে ।এছাড়াও আর একজন বিজেপি কর্মী দুলাল কুমারের দেহ একটি বিদ্যুতের হাই টেনশন পোলের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গেছে পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগেই। এরপর লোকসভা নির্বাচনের আগে পুরুলিয়াতে বিজেপি কর্মীর ছেলে শিশুপালের ঝুলন্ত দেহ পাওয়া যায়। বিজেপি পার্টি এর জন্য তৃণমূলকে দায়ী করেছে। এই নিহতদের পরিবারকে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে মমতা ব্যানার্জির সামনে উপস্থিত রেখে তৃণমূল কংগ্রেসকে হয়তো চাপে রাখতে চাইছেন মো্দী সরকার এমনটাই মনে করছেন অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা।

এই খবরই সংবাদমাধ্যমে এর মাধ্যমে জনগণের সামনে আসার পর সিদ্ধান্ত বদল করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। তিনি টুইট করে নরেন্দ্র মোদীকে আবার প্রধানমন্ত্রিত্বের জন্য অভিনন্দন জানান। কিন্তু তার পরেই তিনি লেখেন প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে তিনি উপস্থিত থাকবেন না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, বিগত কিছু সময় ধরে সংবাদ মাধ্যমে উঠে আসা খবর থেকে তিনি জানতে পারেন বাংলায় ৫৪ বিজেপি কর্মী নিহত হয়েছে রাজনৈতিক হিংসায় একেবারে সত্য নয়। এবং এর পেছনে কোন রকম রাজনৈতিক দলের হাত নেই। এগুলোকে কোনভাবেই পলিটিক্যাল মার্ডার বলা যায় না। বাড়ির কোনো সমস্যা কিংবা অন্য কো্নো কারণে হয়তো এই খুন হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন। এবং শেষে তিনি জানিয়েছেন যে তিনি এই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে না থাকারই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

দেখে নিন মমতা ব্যানার্জি সেই টুইটঃ

 

100% Free Domain Hosting - Dreamhost banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

ভোটের মুখে বড়সড় ঝুঁকি; দলের ১৫ নেতাকে তাড়ালেন নীতীশ, তালিকায় প্রাক্তন মন্ত্রী-বিধায়ক

বিহার বিধানসভা নির্বাচনের আর কয়েকদিনই বাকী। একেবারে ভোটের মুখে এসে বড়সড় ঝুঁকি নিলেন বিহ…