Home ভারতবর্ষের খবর ফের চাঁদের উদ্দেশ্যে পাড়ি ভারতের, আজ রাতেই উৎক্ষেপণ হবে চন্দ্রযান ২-এর!

ফের চাঁদের উদ্দেশ্যে পাড়ি ভারতের, আজ রাতেই উৎক্ষেপণ হবে চন্দ্রযান ২-এর!

রবিবার অর্থাৎ আজ মধ্যরাতে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটা থেকে চাঁদে পাড়ি দেবে ভারত। ইসরো থেকে ফের চাঁদে পাঠানো হচ্ছে চন্দ্রযান ২। চন্দ্রযান ২ এর উৎক্ষেপণ এর মূল উদ্দেশ্য হলো চাঁদের দক্ষিণ মেরুর রহস্যের সন্ধান করা।

Web content writing training Online

ভারতের সময় অনুযায়ী রবিবার রাত ২ টা ৫১ মিনিটে পৃথিবী থেকে পাঠানো হবে মহাকাশে চন্দ্রযান ২ কে। বিজ্ঞানীরা আশা করছে উৎক্ষেপণের ১৬ মিনিট পর মহাকাশের নির্দিষ্ট কক্ষপথে পৌঁছে যাবে মহাকাশযানটি। মূলত চাঁদের দক্ষিণ মেরুর রহস্যের সন্ধান করতে পাঠানো হচ্ছে চন্দ্রযান ২ কে। অরবিটার, বিক্রম নামের একটি ল্যান্ডার এবং রোভার প্রজ্ঞান এই তিনটি মডেল থাকছে চন্দ্রযান ২ তে।

জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা অনুমান করছেন চন্দ্রযান ২ চাঁদের দক্ষিণ মেরু সম্পর্কে জানতে অনেক সাহায্য করবে। বিজ্ঞানীদের অনুমান চাঁদের এই অংশে মিললেও মিলতে পারে জল ও জীবাশ্মের সন্ধান। দক্ষিণাংশে চাঁদের মাটি কেমন কিংবা সেখানে কোন জলের অস্তিত্ব আছে কিনা কিংবা কোন বরফের পুরু স্তর আছে কিনা তা খুঁজে দেখাই হবে চন্দ্রযান ২ এর উদ্দেশ্য। ইসরো তরফ থেকে জানানো হয়েছে রবিবার রাতে এই উৎক্ষেপণের সময় তা সরাসরি সম্প্রচার করা হবে দূরদর্শন চ্যানেল। এছাড়াও ইউটিউব এ দূরদর্শনের চ্যানেলে লাইভ দেখা যাবে এই সম্পূর্ণ পর্বটি।

চন্দ্রযান ২ এর উৎক্ষেপণের জন্য রবিবার রাত থেকে সোমবার ভোর পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরের উপর দিয়ে যে সব বিমানের রুট আছে তা বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও বিমানের সময়সূচীও বদল করা হয়েছে। এইবারের উৎক্ষেপণে চন্দ্রযান ২ যদি চাঁদের মাটিতে সফল ভাবে পৌঁছে তাহলে মহাকাশযান পাঠানো তে চতুর্থ স্থানে উঠে আসবে ভারতবর্ষের নাম।

ইসরো জানিয়েছে যে তিনটি মডেল থাকছে মহাকাশযানটি সেই তিনটিরই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে। মহাকাশযানের অরবিটার টি থাকবে চাঁদের উপরের অংশে। অরবিট আর টি চাঁদের উপরের অংশ থেকে বিভিন্ন খনিজের ছবি তুলবে ও ম্যাপিং করা হবে। বিক্রম নামে যে ল্যান্ডার টি আছে তা চাঁদের ভূমিকম্প এবং তাপমাত্রা সংক্রান্ত বিষয় পর্যবেক্ষণ করবে। রোভার চলমান যান এর মাধ্যমে চাঁদের মাটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবে।

যেই রকেটে চড়ে চন্দ্রযান ২ চাঁদে পাড়ি দেবে সেটি এই মুহূর্তে ভারতের সবচেয়ে শক্তিশালী রকেট। রকেট টির নাম ‘GSLV’ মার্ক ৩। এই অভিযানে ভারতের মোট খরচ হচ্ছে প্রায় এক হাজার কোটি টাকা। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় যেটি সেটি হল এই চন্দ্রযান ২ ভারতের বুকেই বানানো হয়েছে। এর ওজন ৩.৮ টন। আরজে রকেটে করে এই মহাকাশযানটি যাবে সেই রকেটের বহন ক্ষমতা ৪ টন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এর আগে ২০০৮ সালের ২২ শে অক্টোবর চন্দ্রযান 1 এর অভিযান হয়েছিল। এই নিয়ে দ্বিতীয়বার চাঁদের উদ্দেশ্যে পাড়ি দেবে ভারত। আর এই অভিযান সফল হলে মহাকাশযান পাঠানো এ চতুর্থ স্থানে উঠে আসবে ভারতের নাম।

আরও পড়ুনঃযাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করা হল দুই গাঁজা পাচারকারীকে!

100% Free Domain Hosting - Dreamhost banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

করোনা আবহে ১৬৯ দিন বন্ধ থাকার পর আজ থেকে ফের চালু হল দিল্লি মেট্রো পরিষেবা

করোনার সংক্রমণ মাথাচাড়া দিতেই দেশজুড়ে শুরু হয় লকডাউন। গত ২২ মার্চ থেকে বন্ধ দিল্লির মেট…