Home ধর্ম ও জীবন জেনে নিন তীর্থ স্থানের মাহাত্য!

জেনে নিন তীর্থ স্থানের মাহাত্য!

দক্ষ প্রজাপতির কন্যা সতী, শিবকে পতিত্বে বরণ করেন, কিন্তু দক্ষের মোটেই শিবকে পছন্দ নয়। একবার প্রজাপি দক্ষ এক মহাযজ্ঞের আয়োজন করেন। শিব ছাড়া সকল দেবতাই ঐ যজ্ঞে নিমন্ত্রিত হন। সতী বিনা নিমন্ত্রণেই গৃহে উপস্থিত হলেন। যজ্ঞ স্থলে দক্ষ শিবের নিন্দায় মুখর হয়ে উঠলেন। শিবের নিন্দায় সঙ্য করতে না পেরে সতী যক্ষস্থলেই দেহত্যাগ করেন। সতীর মৃত্যু সংবাদে শিব ক্ষিপ্ত হয়ে দক্ষ পন্ড করে মৃত সতীর দেহ কাঁধে নিয়ে উন্মত্ত তান্ডব নৃত্য শুরু করেন। শিবের এই উন্মত্ত তান্ড নৃত্য বন্ধ করার জন্য উপায়ন্তর না দেখে বিষ্ণু সুদর্শনচক্র দিয়ে মৃত সতীর পবিত্র দেহ ৫১টি খণ্ডে খণ্ড-বিখণ্ড করেন। সতীর ঐ খণ্ডিত দেহাংশ যে যে স্থানে পড়েছিল, সেই স্থানেই গড়ে উঠেছিল পবিত্র তীর্থস্থান। রূপ নেয় একটি পীঠস্থানের।

Web content writing training Online

১) হিঙ্গুলা(হিংলাজ)- সতীর ব্রক্ষরন্ধ্র বিগ্রহ-দেবী-কোট্টারী ও ভৈরব ভীমলোচন। পাকিস্তানের করাচি ছেকে উত্তরপূর্ব দিকে মরুভূমির উপর দিয়ে গিয়ে ১২৮ কিমি পথ।

২) সর্করারে- দেবীর ত্রিনেত্র, দেবী মহিষমর্দিনী, ক্রোধীশ ঙৈরব। পাকিস্তানের করাচি থেকে সুক্কর ষ্টেশনের কিছুদূরে অবস্থিত।

৩) সুগন্ধা- দেবীর নাসিকা, দেবী সুনন্দা, ভৈরব ত্র্যস্বক। বাংলাদেশের বরিশাল শহর তেকে ১৩ মাইল উত্তরে শিকারপুরে সোন্ধ নদীর ধারে।

৪) অমরনাথ সতীর কন্ঠ, দেবী মহামায়া, ভৈরব ত্রিসন্ধ্যেশ্বর। কাশ্মীরে অবস্থিত তুষারতীর্থ অমরনাথ। শ্রীনগর থেকে পহেলগাঁও ৯৪ কিমি বাসে , সেখান থেকে চন্দনবাড়ী ১৬ কিমি জীপে, তারপর হেঁটে যেতে হবে অমরনাথেষ। শ্রাবনী পূর্ণিমায় পূর্ণ্যার্থীদের ভীড় হয় অমরনাথ গুহার তুষার লিঙ্গ দর্শনার্থে।

৫) জ্বালামুখী- সতীর জিহ্বা, দেবী অম্বিকা, ভৈরব উন্মত্ত। পাঠানকোট থেকে জ্বালামুখী রোড স্টেশন, সেখান থেকে ১৩ মাইল দূরে অবস্থিত।

৬) জলন্ধর- সতীর বামস্তন, দেবী ত্রিপুরংমালিনী, ভৈরব ভীষণ। জলন্ধর ক্যান্টনমেন্ট স্টেশন থেকে দেবীতলা। সেখানে আছে কালভৈরবের মন্দির ওবং মহাবীরের মন্দির। এখানে বিন্দেশ্বরী মন্দিরও আছে। পীঠস্থানের পাশেই আছে স্বামী শঙ্করপুরীজীর আস্তানা।

৭) বৈদ্যনাথ- সতীর হৃদয়, দেবী জয়দূর্গা, ভৈরব বৈদ্যনাথ। বিহারে বৈদ্যনাথ ধাম(দেওঘর)।

৮) নেপাল- সতীর জানুদ্বয়, দেবী মহাশিরা, ভেরব কপালী। নেপালে পশুপতিনাথ মন্দিরের নিকটে গুজ্যেশ্বরী মন্দির।

৯) মানস- সতীর দক্ষিন হাত, দেবী দাক্ষায়নী, ভৈরব কপালী। তিব্বতের অন্তর্গত কৈলাস পর্বতের পাদদেশে মানস সরোবর। একখণ্ড শিলায় অবস্থিতা।

১০) উত্‍কলে বিরজাক্ষেত্র- সতীর নাভি, দেবী বিমলা, ভৈরব জগন্নাথ। পুরীর মন্দিরের চত্বরে এই পীঠস্থান অবস্থিত।

আরও পড়ুনঃউল্টো বাড়ি দেখতে পর্যটকেরা ভিড় জমাচ্ছেন তাইওয়ানে! কেমন সেই বাড়ি দেখে নিন ছবি

100% Free Domain Hosting - Dreamhost banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

জন্মাষ্টমীতে কি কি বিষয় সম্বন্ধে সচেতন থাকতে হয় জেনে নিন!

কৃষ্ণ জন্মাষ্টমী বাংলার হিন্দুসমাজের আচরণীয় ব্রতগুলির অন্তর্গত একটি ব্রত। হিন্দু প্রধানত …