চোখের অ্যালার্জি
Home স্বাস্থ্য, শরীরচর্চা ও সুরক্ষা চোখের অ্যালার্জি -র সমস্যায় জেরবার? – দেখে নিন কিভাবে করবেন সমস্যার সমাধান।

চোখের অ্যালার্জি -র সমস্যায় জেরবার? – দেখে নিন কিভাবে করবেন সমস্যার সমাধান।

চোখ হল মনের জানালা।তাতে সমস্যা হলে সব কাজেতেই অসুবিধা দেখা দেয়।সেই অসুবিধা এড়াতে মেনে চলুন এই উপায়গুলো।

চোখে অ্যালার্জি হলে সেটা হয় সবচেয়ে বিরক্তির কারণ।কোনো কিছু ঠিক ভাবে দেখা যায় না।কাজ সব ভুল হয়ে যায়।তাই আপনি যদি চোখের সমস্যায় খুব ঘন ঘন ভোগেন তবে এই রাস্তা গুলো মেনে চলুন।
চোখের অ্যালার্জি সাধারণত দুই রকমের হয় সিসেনাল এবং বারোমাসী।যেসব চোখের অ্যালার্জি বছরের বিশেষ সময়ে হয় সেইসব অ্যালার্জি গুলিকে বলা হয় সিসেনাল।এই গুলো সাধারণত ছত্রাক আক্রমনের জন্য কিংবা ফুলের রেনু চোখে ঢুকে হয়। এছাড়া যেসম অ্যালার্জি বারোমাস লেগেই থাকে তাকে বলা হয় বারোমাসী অ্যালার্জি।সাধারণত এইসব অ্যালার্জি ধূলোবালি, পাখির পালক, পশুর গায়ের লোম, ধোঁয়া, ক্লোরিন, কসমেটিকস, পারফিউম এইসব চোখে ঢুকে গেলে হয়।চোখের অ্যালার্জি হলে কিছু লক্ষণ দেখা যায়।যা দেখে বোঝা যায় যে চোখে অ্যালার্জির সমস্যা হয়েছে।

Web content writing training Online

আরো পড়ুনঃজানেন কি? আপনার নখও বলে দিতে পারে আপনার রোগ – জেনে নিন রোগ নির্ধারনের উপায়।

চোখের অ্যালার্জি -র লক্ষণগুলো হল-

• চোখ ফুলে যাওয়া।
• চোখের ভিতর লাল হয়ে যাওয়া।
• চোখে অনবরত চুলকানি হওয়া।
• চোখ থেকে জল পড়া।
• সবসময় চোখের ভেতর ময়লা পড়েছে এমন মনে হওয়া।
• চোখে পিচুটি কাটা।
এই সমস্যা গুলো দেখলেই বুঝে যাবেন আপনার চোখে অ্যালার্জি হয়েছে।সমস্যা যখন আছে তার সমাধানের উপায়ও থাকবে।

জেনে নেওয়া যাক সমাধানের উপায়গুলো:

১. একটি তুলোয় করে কিছুটা গোলাপ জল নিন।তারপর সেটিকে যে চোখে অ্যালার্জি হয়েছে সেই চোখে লাগিয়ে দিন।তারপর চোখ বন্ধ করে বসে থাকুন।চোখের অ্যালার্জি কমাতে গোলাপ জল হল মোক্ষম ওষুধ।গোলাপ জল চোখ ঠান্ডা রাখতেও সাহায্য করে।
২. অ্যালার্জি হলে চোখে সবচেয়ে বেশি ময়লা জমে।চোখে ময়লা জমলে তা পরিস্কার করার জন্য এক গ্লাস জলে ৩ চা চামচ নুন দিয়ে জলটাকে ২০ মিনিট ফোটাতে হবে তারপর সেই জলে তুলো ভিজিয়ে ধীরে ধীরে চোখের কোনা পরিস্কার করতে হবে যাতে চোখের ময়লাটা বেরিয়ে আসে।
৩. চোখে অ্যালার্জি হলে চোখ সবসময় পরিস্কার করে রাখতে হয়।চোখে কোনো সমস্যা হলে বার বার ঠান্ডা জল দিয়ে চোখে ঝাপটা দিলে চোখে আরাম পাওয়া যায়।
৪. শরীরের ইমিউনিটি সিস্টেম কমজোরি থাকলে চোখের এইসব অ্যালার্জির সমস্যা হয়।রোজ রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে আমলকির গুড়োর সাথে মধু মিশিয়ে খাবেন।এতে আপনার ইমিউনিটি বৃদ্ধি পাবে এবং রোগব্যাধি আপনার শরীর থেকে অনেক দূরে থাকবে।কথাতেই আছে “Prevention is better than cure”।তাই সমস্যা হওয়ার আগেই তার থেকে বাঁচার উপায়গুলি জেনে নেওয়াই ভালো।

অ্যালার্জির কবল থেকে বাঁচার উপায়গুলো দেখে নিন:

১. শুকনো আবহাওয়ায় বাইরে বেরোলে অবশ্যই সানগ্লাস ব্যবহার করুন।সানগ্লাস ব্যবহার করলে রাস্তা দূষিত ধূলো ময়লা চোখে ঢুকে সমস্যা বাধাতে পারবে না।
২.যদি আপনি কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করেন।তবে তা নিয়মানুসারে পরিস্কার হাতে চোখে পরুন।সাবধানে এটি ব্যবহার করবেন।
৩.চোখে অসুবিধা হলে বা চোখে চুলকালে চোখ আঙুল দিয়ে রগড়াবেন না।এতে চোখের ক্ষতি হয়।চোখে অসুবিধা হলে চোখে ঠান্ডা জলের ঝাপটা দেবেন।
৪.টিভি বা কম্পিউটারের দিকে বেশী সময় ধরে তাকিয়ে থাকবেন না। এতে চোখের ক্ষতি হয়।
৫.ঘর দোর নিয়মিত পরিস্কার করবেন।অনেকসময় চোখে ধুলো ময়লা ঢুকেও অ্যালার্জি হতে পারে।
৬.কোনো আই ড্রপ ব্যবহার করলে তা ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে করুন।
৭.বাড়িতে যদি লোমশ কোনো পোষ্য থাকে তবে তার সাথে সাবধানে থাকুন।তার লোম থেকেও চোখের অ্যালার্জি হতে পারে।

এই সমস্তদিকে একটু নজর রাখলেই পাওয়া যাবে চোখের অ্যালার্জি থেকে মুক্তি।চোখ শরীরের সবচেয়ে দামি অঙ্গ তাকে ভালো রাখতে তার যত্ন ভালোভাবে নিন।

100% Free Domain Hosting - Dreamhost banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

খুব বেশি কফি খান? খুব সাবধান, দেখা দিতে পারে এই সমস্যাগুলি

এক-আধ কাপ খেলে কোনও সমস্যা নেই, কিন্তু মাত্রাতিরিক্ত কফি পান করলে কী কী হতে পারে সেটা একবা…