haunted place
Home অফবিট পাঁচমিশালি পৃথীবির সেরা ৫ টি ভয়ংকর জায়গা।

পৃথীবির সেরা ৫ টি ভয়ংকর জায়গা।

পৃথীবিতে এমন কিছু স্থান আছে যা কোন হরর মুভির লোকেশনকেও হার মানায় । যেখানে হয়ত আপনি একবার গেলে আপনার সারা জিবনে শোনা ভুত প্রেতের গল্প গুলো সত্যি মনে হবে।

Web content writing training Online

৫. ব্রান ক্যাসেলঃ এটি রোমিয়ের ব্রানে ক্যাসেবেনিয়ার বর্ডারের কাছে অবস্থিত। এই বিখ্যাত জায়গাটি ড্রাকুলার ক্যাসেল নামেও পরিচিত।এটি ক্যাসেল্টি অসলে ড্রাকুলার অনুপ্রেয়নায় তৈরি। এই ক্যাসেলের বাইরের মার্কেটে আপনি সব গা ছমছমে জিনিস পেয়ে যাবেন।যেমন ব্লাড রেড ওয়াইন, ভ্যাম্পার মাস্ক, এমনকি ঊডের স্টিকার। এই ক্যাসেলে আপনি দেখতে পাবেক দম দম ঘুরানো সিড়ি, গুহার মত দরজাআর চির আমর সব নিদর্শন সব মিলিয়ে ছমছমে অবস্থা।

৪. ভিলেজ অব জাতিংগাঃ ইন্ডিয়ার নর্থ ইস্টে অবস্থিত ছোট্ট এই গ্রামটিতে অদ্ভুত একটি রাস্তা আছে, যেখানে আকাশ থেকে পাখিরা মাটিতে আছরে পরে মারা যায়। এবং এই ঘটনাটি কোন কারন ছারাই ঘটে আর ভয়ংকর বিষয় হচ্ছে এটি ঘটনাটি একটি ঘড়ীড় সময় মেনে হয়ে থাকে। প্রত্যেক বছর সেপ্টেম্বর বা অক্টোবর মাসে সকাল ৭ টা থেকে ১০ টার মধ্যে এঘটনাটি হয়ে থাকে। এই ঘটনাটী প্রায়একশ বছর ধরে ঘটে আসছে কিন্তু বিজ্ঞানীরাও এর কোন সুরাহ করতে পারে নি।

৩. কার্সিয়াং চার্জঃ এটি দার্জিলিং এর কারসিয়াং অবস্থিত। ভৌগলিক ভাবে কারসিয়াং এর অন্ধকারাচ্ছন্ন পরিবেশ কোন ভূতুরে জায়গা থেকে কম নয়। আর এর মাঝেই রয়েছে একটি জংগলে ঘেরা চার্জ যা দীর্ঘকালীন সময় ধরে কারসিয়ান বাসির কাছে একটি ভয়ের কারন।স্থানীয়দের মতে এখনে রাতে একটী অর্দ মস্তিস্ক ছলে ঘুড়ে বেরায় এবং ওখনের পশু পাখির আর্তনাত ও পাইং গাছ থেকে বয়ে আশা ছমছমে হাওয়া যে কারো হাড় কাপিয়ে তুল্বে।

২.উইনচেস্টার মিস্টেরি হাউজঃ ক্যালেফোনিয়ার সেন্ট জোসেফে ১০৭ তলা বিশিষ্ট একটি বড় অট্টালিকা রয়েছে। এই বাড়ী টিকে ভুতুরে ধাধার মত করে তৈরী করা হয়েছে। এই বাড়িটিতে রয়েছে কয়েক মাইল বিশিষ্ট হল ঘর এবং অনেক গোপন কক্ষ , ডেদেন্স এর মতও জায়গাএখানে রয়েছে। এমন কিছু দরজা আছে যা কখনই খোলে না এবং সিলিং থেকে ওঠা সিড়ি। আর আপনি যদি জানেন এই বাড়িটিকে কেন তৈরি করাহয়েছে তাহলে আপনি আসলেই ভয় পেয়ে জাবেন এই বাড়িটির মালিক স্যার উইনচেস্টারকে বাড়ীটি তৈরি করতে ৩৮ বছর সময় লেগে ছিল।বাড়িটির প্রথম অবস্থায় উইঙ্কে এক অজানা মাধ্যমে জানানো হয়েছিল বাড়িটি একটি আত্মা দ্বারা হন্টেট ছিল। আর এই আত্মার মৃত্যু কারন ছিল তার নিজের পরিবার তাকে রাইফেল দিয়ে খুন করে। আর এই আত্মা কে শান্ত করার একটি মাধ্যমি ছিল এমন একটি বাড়ি বানানো যার নির্মান কাজ কখনোই শেষ হবে না । আর উইন বাড়িটীকে এমন ভাবে তৈরি করেছিল যাতে আত্মাটিকে ধাধায় ফেলেদেয়া যায়।

১. প্রিপিয়াটঃ নর্থ ইউক্রেনের একটি পরিত্যাক্ত শহর যেখনে এক সময় বাস স্থান ছিল ওয়ার্কার এবং সায়েন্টিস্টদের, যারা নিউক্লিয়ার প্লান্টে কাজ করত। নির্জন জনশূন্য পরবেশে শহরের মাঝখানে রয়েছে একটি পার্ক যা শহরটিকে আরও ভয়াবহ করে তোলে। ১৯৮৬ তেপ্লান্টের রেডিয়েসনের জন্য শহরটিকে পরিত্যাক্ত ঘোশনা করা হয়, তবে রিডাকশন কমে যাওয়া জন্য শরটি আবার শবার কন্য উন্মুক্তকরা হচ্ছে।কিন্তু এত বছর যাবত ফাকা পরে থাকা একটি শহরে কেঊ যেতে চাইবে।

100% Free Domain Hosting - Dreamhost banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

সাফাই কর্মী ছাঁটাই নিয়ে বিক্ষোভ, উত্তেজনা মালদা মেডিক্যাল কলেজে

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এইসব সাফাই কর্মীরাই নিজেদের জীবন বাজি রেখে হ…