Home লাইফস্টাইল এই অসহ্য গরমে স্বস্তির আস্বাদ পান তরমুজে, দেখে নিন উপায়গুলো

এই অসহ্য গরমে স্বস্তির আস্বাদ পান তরমুজে, দেখে নিন উপায়গুলো

গরমের ফলগুলোর মধ্যে তরমুজ অন্যতম। তীব্র এই গরমে রসে টইটুম্বুর এই ফলটি কেবল আমাদের প্রাণ জুড়াতেই সাহায্য করে না, এর রয়েছে বেশকিছু গুণ। পুষ্টিতে ভরপুর তরমুজ তাই রাখতে পারেন আপনার খাদ্য তালিকায়। চাইলে খুব সহজেই তরমুজ দিয়ে তৈরি করতে পারেন সুস্বাদু শরবত।

Web content writing training Online

দুইভাবে তরমুজের শরবত তৈরি করা যায়। চলুন দেখে নেই কীভাবে বানাবেন তরমুজের শরবত।

প্রথম প্রক্রিয়াঃ

উপকরণ :

তরমুজের টুকরো ২ কাপ, বরফ কুচি ২ কাপ, বিটলবণ অল্প, লেবুর রস সামান্য, পুদিনা পাতা কয়েকটি, চিনি পরিমাণমতো।

প্রণালি :

প্রথমে তরমুজের খোসা ছাড়িয়ে বিচিগুলো ফেলে দিন। এবার ছোট ছোট টুকরো করে কেটে নিন। এাবর একটি ব্লেন্ডারে টুকরো করা তরমুজ, বিট লবণ, লেবুর রস, কয়েকটি পুদিনার পাতা এবং চিনি দিয়ে ব্ল্যান্ড করে নিন। এখন এটি একটি ছাকনি দিয়ে ছেঁকে নিন। এবার বরফ কুচি দিয়ে গ্লাসে ঢেলে টেবিলে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

দ্বিতীয় প্রক্রিয়াঃ

উপকরণ:

তরমুজ টুকরা করে কাটা দুই কাপ, চিনি এক কাপ, ঠা্ণ্ডা পানি দুই গ্লাস, শরবত ছাকার জন্য ছাকনি ও তরমুজের ওপর ডেকোরেশনের জন্য ছোট ছোট টুকরা করে কাটা তরমুজ- আধা কাপ।

প্রস্তুত প্রণালি:

তরমুজের শরবত যেহেতু ব্লেন্ডার ছাড়া হাতে করবেন, সেহেতু হাত ভালো করে ধুয়ে নিন।চাইলে গ্লাভস ও ব্যাবহার করতে পারেন।এবার ছাড়ানো একটি বড় পাত্রে তরমুজ টুকরা নিন।এতে প্রথমে আধা কাপ চিনি দিয়ে ভালো করে চটকে নিন।চিনি গলে না যাওয়া পর্যন্ত ভালো করে মাখুন। চিনি গলে গেলে এতে আধা কাপ পানি দিয়ে একটি গ্লাসে ছেকে নিন। বেচে যাওয়া তরমুজ মাখানো আবারও পাত্রে নিয়ে বাকি অর্ধেক কাপ চিনি দিয়ে ভালো করে আবারও মাখুন যতক্ষণ না চিনি গলে মিশে যায়। এবারে এর মধ্যে আবারও আধা কাপ পানি মিশিয়ে ছাকনি দিয়ে ছেকে নিন। এবারে এই মিশ্রণটির মধ্যে বাকি ঠান্ডা পানি মিশিয়ে দুটি গ্লাসে ঢালুন। উপরে কেটে রাখা তরমুজ টুকরো দিয়ে পরিবেশন করুন তমুজের শরবত।

100% Free Domain Hosting - Dreamhost banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

পুজো হবে, নাকি হবে না ! দোটানায় কলকাতার আবাসনের দুর্গা পুজো !

 হবে, নাকি হবে না? কলকাতার আবাসনে এটাই পুজোর ভাবনা। আবাসনের অনেক আবাসিক দোটানায়! কেউ কেউ …